News

প্রতি সপ্তাহে ‘সম্মেলনের উৎসব’ করবে ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্ব

সংগঠনকে গতিশীল করতে প্রতি সপ্তাহে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ‘সম্মেলনের উৎসব’ হবে বলে মন্তব্য করেছেন ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির সভাপতি সাদ্দাম হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনান।

এ সময় গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সংগঠন পরিচালনা এবং বিতর্কমুক্ত ছাত্রলীগ উপহার দেওয়ার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদক।

বুধবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে এ প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তারা।

সারা বাংলাদেশে প্রতি সপ্তাহে সম্মেলনের উৎসব হবে।

উপজেলা, জেলা পর্যায়ের ইউনিটে সপ্তাহে, অর্ধমাসে অথবা মাসে সম্মেলনের নিশ্চয়তা দিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক।
সম্মেলনের বিষয়ে সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি হলে নেতৃত্ব নির্বাচনের ঘাটতি এবং অভিযোগ কমে আসবে। সামনের দিনগুলোতে আমরা আরো বেশি সতর্ক থাকব, আরো বেশি যুগোপযোগী, সাংগঠনিক সক্রিয়তা ও বৈচিত্র্য আনার চেষ্টা করব। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদকে কার্যকর করতে কাজ করব। দায়িত্ব বিকেন্দ্রীকরণ করলে সংগঠন গতিশীল হবে। কেন্দ্র ও তৃণমূল সুন্দরভাবে গড়ে তোলা যাবে। ’

সাধারণ সম্পাদক শেখ ইনান বলেন, ‘করোনা মহামারি থেকে বিশ্ব ধীরে ধীরে উঠে আসছে। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নির্দেশনা নিয়ে অন্তত আমরা যত দিন দায়িত্বে আছি, সারা বাংলাদেশে প্রতিটি সপ্তাহে সম্মেলনের উৎসব হবে। উপজেলা, জেলা পর্যায়ের ইউনিটে সপ্তাহে, অর্ধমাসে অথবা মাসে সম্মেলনের নিশ্চয়তা দিচ্ছি। ’

আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে পুরো বাংলাদেশের অলিগলি চষে বেড়াবেন উল্লেখ করে শেখ ইনান বলেন, ‘আমরা ছাত্রলীগকে গতিশীল করার জন্য সমগ্র বাংলাদেশের অলিগলি চষে বেড়াব। এটা যদি আমরা না করতে পারি তাহলে প্রধানমন্ত্রীর প্রকৃত কর্মী হতে পারব না। ’

বিভিন্ন সময়ে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে সাংবাদিকদের ওপর আঘাত-নির্যাতনের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এ ধরনের কাজ ছাত্রলীগের কেউ সমর্থন করে না। আমাদের দায়িত্ব থাকাকালীন সাংবাদিকদের সাথে যাতে কোনো প্রকার অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা না ঘটে এ ব্যাপারে আমরা শতভাগ নিশ্চয়তা দিচ্ছি। ’

৩০তম সম্মেলনের দুই সপ্তাহ পর গতকাল মঙ্গলবার রাতে ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের সাদ্দাম হোসেনকে সভাপতি এবং একই বিভাগের একই বর্ষের ছাত্র শেখ ওয়ালী আসিফ ইনানকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে।

সাদ্দাম হোসেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্রসংসদের (ডাকসু) সাবেক সহসাধারণ সম্পাদক। তিনি সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে এ পদে নির্বাচিত হন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে এ মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেছেন। দলে সুবক্তা হিসেবে সাদ্দামের বিশেষ গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে।

শেখ ওয়ালী আসিফ ইনান ছাত্রলীগের বিগত কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক। তিনি এর আগে ছাত্রলীগের গ্রন্থনা ও প্রকাশনা বিষয়ক উপসম্পাদক ছিলেন। তিনি বিজয় একাত্তর হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি। তার বাবা প্রয়াত শেখ আব্দুর রব ১৯৭০-৭১ সালে বৃহত্তর বরিশাল জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন।

কেন্দ্রীয় কমিটির পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের কমিটিও ঘোষণা করা হয়েছে।

ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন মাজহারুল করিম আর সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পেয়েছেন তানভীর হাসান সৈকত।

অপরদিকে ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার সভাপতি রিয়াজ মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক সাগর আহমেদ এবং ঢাকা মহানগর দক্ষিণে রাজীবুল ইসলাম সভাপতি ও সজল কুণ্ডু সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পেয়েছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button